July 10, 2020, 4:11 am

শিরোনাম :
কবর থেকে মধ্যযুগীয় কায়দায় ৩ দিনের শিশুর লাশ উত্তোলন ছিনতাই কালে জনতার হাতে দুই ছিনতাইকারী আটক করোনাভাইরাস : সার্কভুক্ত দেশগুলোর সর্বশেষ পরিস্থিতি বছরে সাপের কামড়ে ৬ হাজার মানুষের মৃত্যু নেশার টাকা না পেয়ে স্ত্রীর চুল কেটে দিয়েছে পাষণ্ড স্বামী চকরিয়ায় সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছেনা ইতালিতে ট্রানজিট ফ্লাইটেও বাংলাদেশী যাত্রী নিষিদ্ধ লামা সাংবাদিক ফোরামে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করলেন পৌরমেয়র জহিরুল ইসলাম পেকুয়ার টইটংয়ের সেই নাছিরের পক্ষে রাস্তায় নামল গ্রামবাসী করোনা পরিস্থিতিতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের আলোর পথ দেখাচ্ছে চকরিয়া যুব পরিষদ ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক
গুরুদাসপুরে বসন্ত উৎসব পালন: আজি বাসন্তী রঙে সেঁজেছে ফাগুন

গুরুদাসপুরে বসন্ত উৎসব পালন: আজি বাসন্তী রঙে সেঁজেছে ফাগুন

মো. জালাল উদ্দিন (গুরুদাসপুর) নাটোর
‘এসো প্রাণের উৎসবে’ এই আমন্ত্রণে মুজিব শতবর্ষে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে গুরুদাসপুর উপজেলা চত্বরের “আম্রকাননে” চলছে বসন্তবরণ উৎসব। বর্ণাঢ্য র‌্যালি,অতিথিদের আসন গ্রহন ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ‘ফাগুন,হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান-’ রবীন্দ্র সংগীতের মধ্যদিয়ে শুরু হয় উৎসবের কর্মসুচি।

ছুটির দিনের সাথে আরো যুক্ত হয়েছে উৎসবের বাসন্তী বাহার। তীব্র শীতের পর হালকা গরমের আমেজে আজ অনেকেই পা রেখেছেন ফাগুনের মহাৎসবে। নারীরা, বিশেষ করে তরুণীরা অনেকেই পরেছেন বাসুন্তি রঙের শাড়ী। সাজগোজে আছে হলুদ গাঁদা ফুল আর শিমুল ফুলের ছোঁয়া। উজ্জ্বল রোদে কড়া ঝাঁঝে নাড়া দিচ্ছে পহেলা ফালগুন। সাঁজ সজ্জায় পিছিয়ে নেই তরুণরাও বাহারী রঙের পাজামা পাঞ্জাবী পরে উৎসবে অন্য রকম মাত্রা যোগ করেছে।

গুরুদাসপুর উপজেলা চত্বরে প্রবেশ করেই বোঝা গেল, ফাগুন শুধু বনে আর প্রকৃতিতেই নয়, শহর,নগর এমনকি গ্রামীণ জীবনেও শুরু করেছে যাত্রা। গুরুদাসপুরে এই প্রথম ফাগুনের উৎসবকে বরণ করে নিতে স্কুল-কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থী,শিক্ষকসহ নানা শ্রেণি পেশার বিভিন্ন বয়সি হাজারো নারী পুরুষ। ১লা ফালগুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ বিকেল ৩টায় রবীন্দ্র সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বসন্তবরণ উৎসব। এতে স্থানীয় বরেণ্য শিল্পী ও কিশোর কিশোরীদের পরিবেশনায় নাচ, গান, কবিতা আবৃত্তি দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় বসন্তকে। অনুষ্ঠানটি চলে সন্ধে পর্যন্ত। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন-নাটোর জেলা আ’লীগের সভাপতি স্থানীয় সাংসদ আব্দুল কুদ্দুস, উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী, ভাইস চেয়ারম্যান আলাল শেখসহ রাজনীতি বীদ,সরকারী কর্মকর্তা,সাংবাদিক,শিক্ষক-শিক্ষার্থী,ব্যবসায়ীসহ সকল শেণি পেশার হাজারো মানুষ।

বিলচলন শহীদ সামসুজ্জোহা সরকারী কলেজের শিক্ষার্থী ইসমাতারা সিঁথি বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে যোগ দিয়েছেন বসন্ত বরণের এ উৎসবে। গুরুদাসপুর রোজী মোজাম্মেল মহিলা অনার্স কলেজের সম্মান প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ইসরাত জেবিন মিতু জানান, ‘ইতোপুর্বে উপজেলা পর্যায়ে বসন্ত বরণ উৎসব দেখিনি। শুধুমাত্র টেলিভিশনে দেখেছি। আজ আমাদের উপজেলার সুযোগ্য প্রিয় অবিভাবক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তমাল হোসেন স্যারের শৃজনশীলতার কারনে নতুন নতুন কর্মসুচি দেখার সৌভাগ্য হচ্ছে। এবার প্রথমবারের মতো স্থানীয় পর্যায়ের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পেরে খুব আনন্দ পাচ্ছি। অসংখ্য ধন্যবাদ অনুষ্ঠান আয়োজনকারী কর্তৃপক্ষকে।’

নানা সাজে সাজা দিনটিকে স্মরনীয় করে রাখতে ‘সেলফি’ তুলে নিজেদের ছবির ফ্রেমে বন্দী করছেন যুবক-যুবতি কিশোর কিশোরীসহ নানা বয়সের নারী-পুরুষ। কেউবা আবার নেচে গেয়ে আনন্দে মাতোয়ারা করে রাখছেন পুরো উৎসবকে। এযেন বাঙ্গালীর চিরোচেনা প্রাণের উৎসব। এখানে কোন দলমত,ধর্ম,বর্ণর ভেদাভেদ নেই। আছে শুধু একটি কথাই ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান। আমার আপনহারা প্রাণ আমার বাঁধন ছেড়া প্রাণ।।

উৎসবে আসা চাঁচকৈড় শহিদা কাসেম বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নেগার সুলতানা রেখা তার অনুভুতি প্রকাশ করেন, ‘দীর্ঘদিন শীতের প্রকট কাটিয়ে বসন্তের ঝলমলে রোদে দারুন এক পরিবেশে অসাধারণ এক উৎসব পালন করলাম ধন্যবাদ ইউএনও মো.তমাল হোসেন স্যারকে উপজেলা পর্যায়ে এত সুন্দর সুন্দর উৎসব আয়োজনের জন্য।

অনুষ্ঠানের আয়োজক গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.তমাল হোসেন বলেন,বাঙ্গালীর চিরায়াত ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনতে বা ধরে রাখতেই অন্যান উৎসবের ন্যয় প্রতি বছর বসন্ত এই উৎসব পালন করা হবে।#

নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © 2019 districtnews24.Com
Design & Developed BY districtnews24.Com